রুহ আফজা দাম ২০২৪

রুহ আফজা হচ্ছে এমন একটি পানীয় যা গ্রীষ্মের চেষ্টা মেটাতে, রোগীদের জন্য সুস্বাদু ও মন চাঙ্গা করে এমন একটি শরবত। সর্বপ্রথম ১৯০৭ সালে হাকিম আব্দুল মাজিদের মাধ্যমে এই সুস্বাদু পানীয় তৈরি হয়। বাংলাদেশে এই পানীয়টির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে, বিশেষ করে পবিত্র মাহে রমজান মাস শুরু হওয়ার সাথে সাথেই বাংলাদেশের বিভিন্ন দোকানগুলোতে এই পানীয়টি বেশি পাওয়া যায়।

আপনারা যারা পবিত্র মাহে রমজান মাস উপলক্ষে রুহ আফজা খুজতেছেন তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট।  এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের সাথে রুহ আফজা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করব। এছাড়াও এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি বিভিন্ন ধরনের বিভিন্ন কোম্পানির এবং বিভিন্ন পরিমাণের রুহ আফজা দাম সম্পর্কে তথ্য প্রদান করার চেষ্টা করব। তাহলে চলুন রুহ আফজা নিয়ে আজকের পোস্টটি শুরু করা যাক।

রুহ আফজা

সর্বপ্রথম বিশ দশকের শুরুতে এক হাকিম এর মাধ্যমে এই রুহ আফজা তৈরি হয়েছিল। বাংলাদেশে রমজানের সময়ে ইফতারে শরবত তৈরি তে বিশেষ ভূমিকা পালন করে রুহ আফজা। বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত ও পাকিস্তানের এই উন্নতির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। প্রতিদিনের ইফতারে এই পণ্যটি যেন থাকাই চাই। পবিত্র মাহে রমজানকে ঘিরে বাংলাদেশের দোকানগুলোতে থরে থরে সাজিয়ে রাখে লাল রংয়ের এই রুহ আফজা। বর্তমানে এই পণ্যটি বাংলাদেশ ভারত ও পাকিস্তানের সীমাবদ্ধ নয়, বরং ছড়িয়ে পড়েছে উপমহাদেশের এ তিন দেশ ছাড়িয়ে বিশ্বের অন্যান্য জায়গাতেও।

রুহ আফজা দাম ২০২৪

সারাদিন রোজা রাখার পর মানবদেহে যে ঘাটতি দেখা দেয় সেই ঘাটতি পূরণের জন্য অনেকেই ইফতারে রুহ আফজা দিয়ে শরবত তৈরি করে থাকে। কারণ রুহ আফজায় রয়েছে, সোডিয়াম, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, সালফার, জিংকসহ বিভিন্ন ধরনের ভেষজ উপাদান থাকায় রুহ আফজা শরীরকে দ্রুত সতেজ করে।

বর্তমানে বাংলাদেশের মার্কেটে হামদার্দ কোম্পানির রুহ আফজা  যা পাওয়া যায়। বর্তমানে ৮০০ মিলি পরিমাণের হামদার্দ কোম্পানির রুহ আফজা মার্কেটে বেশ চলমান রয়েছে। ৮০০ মিলি এই পণ্যটি বর্তমানে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা মূল্যে বিক্রি হয়ে থাকে। আপনি চাইলে আপনার নিকটস্থ যে কোন দোকান থেকে অথবা বাংলাদেশের অনলাইন মার্কেটপ্লেস,

সর্বশেষ কথা

সারাদিন রোজা রাখার পর শরীরের ক্লান্তি দূর করার জন্য অরুহাত যা একটি অতি কার্যকরী একটি পানীয়। আজকের এই পোস্টে আমি আপনার সাথে বর্তমান বাজারে রুহ আফজা এর দাম কেমন তা জানানোর চেষ্টা করেছি। আশা করি ইতিমধ্যে এই পোস্টের মাধ্যমে রুপাপ্ত সম্পর্কে বেশ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং এই পণ্যটি বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে কেমন দামে বিক্রি হয় তাও জানতে পেরেছেন। আজকের সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

About Foysal Ahmed

আমি মোঃ ফয়সাল আহমেদ। দীর্ঘদিন যাবত আমি অনলাইন কাজের সাথে জড়িত। আজকের দাম কত সাইটে আমি আমাদের দৈনন্দিন নিত্য প্রয়োজনীয় সকল প্রকার পণ্যের দাম নিয়ে আলোচনা করে থাকি। আশা করি আমাদের সাইট থেকে প্রায় সকল ধরনের জিনিসের দাম সম্পর্কে অবগত হতে পারবেন।

View all posts by Foysal Ahmed →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *